এইচটি ইমাম সাংবাদিকদের দেখে নেয়ার হুমকি দিচ্ছেন: বিএনপি

রাজনীতি

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান এইচটি ইমাম সাংবাদিকদের দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
শনিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।
রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম নিয়মিত নির্বাচন কমিশনে যান এবং সেখানে গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। এমনকি তিনি নির্বাচন কমিশনে কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকদেরকেও দেখে নেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। কয়েকদিন আগে একজন সাংবাদিক এইচটি ইমামের কাছে প্রশ্ন করেছিলেন যে, ঢাকার আদাবরে আওয়ামী লীগের দুজন মারা গেল, হেলমেট পরে ছাত্রলীগ শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা করলো কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেয়া হলোনা, আর বিএনপি অফিসের সামনে পুলিশী হামলার ঘটনায় মামলা হলো এবং গ্রেফতার করা হলো বিএনপি নেতাকর্মীদের? এই প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে তিনি ক্ষেপে যান এবং সাংবাদিককে বলেন-আপনি কী বিএনপি করেন ? মওদুদ আহমদের ওপর ককটেল হামলা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের বলেন-আপনি কি মওদুদ?
তিনি বলেন, ইসিতে আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা উপ-কমিটির সদস্যরা নিয়মিত যাতায়াত করেন৷ তারা যতবার নির্বাচন কমিশনে গিয়েছেন ততবার সেখানে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের হুমকি-ধামকি দিয়েছেন।সাংবাদিকদের প্রশ্ন পছন্দ না হলে তাদেরকে রাজনৈতিক দলের কর্মী বলে ট্যাগ দিয়েছেন৷ শুধু তাই নয়, সাংবাদিকদের লিস্ট করে তাদের বিষয়ে খোঁজ নেয়া হচ্ছে৷ আগামী রোববার রাতে এইচ টি ইমামের বাসায় ইসি বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের ডাকা হয়েছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালক কমিটির কো চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময় করবেন বলে রোববার রাত ৮ টায়, ১ নম্বর হেয়ার রোডস্থ বাসভবনে- এ জন্যে সবাইকে আমন্ত্রণ জানিয়ে এ বার্তা পাঠিয়েছেন। মতবিনিমরের নামে মূলতঃ গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণের কৌশল নিয়েছেন এইচটি ইমাম। এমনিতে ভোট কেন্দ্রে সাংবাদিকদের প্রবেশে নির্বাচন কমিশন কঠোর বিধিমালা জারি করেছে। তাতেও আশ^স্ত না হতে পেরে এখন গণমাধ্যমকে সম্পূর্ণরুপে নিয়ন্ত্রণ করতে তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *