চাঁদপুর শহরকে অপরাধ ও যানজটমুক্ত রাখতে জেলা প্রশাসন, পৌরসভা ও পুলিশ বিভাগ একসাথে কাজ করার অঙ্গিকার

জেলার-খবর

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা: চাঁদপুর জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা গতকাল ১৩ জানুয়ারি রোববার সকাল দশটায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সভাটি ছিলো ২০১৯ সালের প্রথম সভা। এছাড়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী আইন-শৃঙ্খলা কমিটির প্রথম সভাও ছিলো এটি। তাই আইনশৃঙ্খলা কমিটির এ সভাটি ছিলো গুরুত্বপূর্ণ।
সভায় সভাপ্রধানের বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান পিএএ। বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোঃ জিহাদুল কবির পিপিএম, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার এমএ ওয়াদুদ, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী ও জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর মোঃ মজিবুর রহমান। সভার শুরুতে গত মাসের কার্যবিবরণী উপস্থাপন করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান। এরপর সড়ক দুর্ঘটনা রোধ, শহরের সৌন্দর্য বাড়ানো, যানজট, দুর্নীতি, মাদক, বিভিন্ন জায়গায় ছেলেদের আড্ডা এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়।
সভায় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এএসএম দেলওয়ার হোসেন, আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ আনোয়ারুল আজিম, সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ মোঃ সফিকুল ইসলাম, হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আসম মাহবুব-উল-আলম লিপন, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর জেলা অ্যাডজুটেন্ট এএসএম আজিম উদ্দিন, কোস্টগার্ড কমান্ডার লেঃ এনায়েত বিএন, পাসপোর্ট অফিসের এডি, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকীসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ এবং কমিটির সদস্যবৃন্দ।
সভাপ্রধানের বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান বলেন, সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সমস্ত বিভাগের অক্লান্ত পরিশ্রমে আমরা সফলভাবে সুষ্ঠু, মানসম্মত ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এবং সর্বজন গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন উপহার দিতে সক্ষম হয়েছি। এজন্যে পুলিশ বিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ, সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব, আনসার, ভিডিপি, গোয়েন্দা বিভাগ ডিজিএফআই, এনএসআই কর্মকর্তা, সদস্যবৃন্দ এবং আপমর জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই।
জেলা প্রশাসক বলেন, দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস ও ইভটিজিং এসব দুষ্ট ক্ষত থাকতে পারবে না। চাঁদপুরকে বিউটিফিকেশন করা হবে এবং সৌন্দর্য নিয়ে আমাদের কর্মযজ্ঞের পরিকল্পনা রয়েছে। পুলিশ প্রশাসন, পৌর পরিষদ এবং জেলা প্রশাসন একসাথে কাজ করবে। রাস্তার ওপর কোনো ভ্যান থাকতে পারবে না। ম্যাজিস্ট্রেট দাঁড়িয়ে থেকে সব পরিস্কার করে দিয়ে আসবে। প্রেসক্লাব ঘাট, মহিলা কলেজ রোড, হাসান আলী স্কুল মাঠসহ আরো যে সব জায়গায় বখাটে ছেলেদের আড্ডা হয় এবং ইভটিজিং ও মাদক এ সবের কোনো গন্ধের ছোঁয়া আমরা চাঁদপুরে দেখতে চাই না। তিনি বলেন, মাদক নিয়ে আমরা অনেক কাজ করছি। কিন্তু টেকসই হচ্ছে না। উপজেলাগুলোর সাথে জেলা পর্যায় মাদক নিয়ন্ত্রণে আমরা একটি অ্যাপস্ বানাচ্ছি। নিরাপদ সড়ক ও দুর্ঘটনারোধকল্পে গাড়িতে ডিভাইজার লাগানোর পরামর্শ দেন তিনি।
সুপার মোঃ জিহাদুল কবির তাঁর বক্তব্যে বলেন, অন্যান্য জেলার তুলনায় চাঁদপুর জেলার নির্বাচন অত্যন্ত ভালো হয়েছে। কোনো সহিংসতা হয়নি, প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেনি। ভয়ঙ্কর কিছু ঘটতে আমরা দেইনি। জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে আমরা সকল অফিসার অর্থাৎ টোটাল টিম আন্তরিকতার সাথে কাজ করেছি। যার জন্যে চমৎকার একটি নির্বাচন উপহার দেয়া সম্ভব হয়েছে। মাদক নিয়ন্ত্রণে ২০১৮ সালে নতুন আইন হয়েছে। আশাকরি মাদক অনেক কমে আসবে।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, গতবছর আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক অনেকগুলো ইভেন্ট ছিল। বিভিন্ন জাতীয় দিবসের পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ ছিলো জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সবগুলো আমরা সুচারুভাবে সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছি। পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন চাঁদপুরে অত্যন্ত সুন্দর এবং সুশৃঙ্খলভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। এজন্যে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তিনি জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন এবং নির্বাচন সংশিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে এবং দেশ এগিয়ে যাবে। জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর সরকার এবার নির্বাচনে যে ইশতেহার দিয়েছেন, তার মধ্যে মাদক, সন্ত্রাস এবং দুর্নীতিসহ সমাজের দুষ্টক্ষতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। আমাদের সরকার আশাকরি সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *