টিআই দুর্নীতির সূচকে আগের বছরের তুলনায় বাংলাদেশ দুই ধাপ নিচে নেমে এসেছে

আন্তর্জাতিক জাতীয় সারা-বিশ্ব

ঢাকা (২৮ জানুয়ারি, ২০২১): ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের (টিআই) দুর্নীতির ধারণা সূচকে আগের বছরের তুলনায় বাংলাদেশের অবনতি হয়েছে। সেই তথ্য তুলে ধরে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেছেন, আরও দুই ধাপ নিচে নেমে এসেছে বাংলাদেশ।

দুর্নীতির ধারণা সূচকে বাংলাদেশের এই অবস্থান হতাশাব্যাঞ্জক বলে উল্লেখ করেছেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক . ইফতেখারুজ্জামান।

এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ৩১টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ চতুর্থ সর্বনিম্ন অবস্থানে এবং দক্ষিণ এশিয়ার আটটি দেশের মধ্যে একমাত্র আফগানিস্তানই বাংলাদেশের চেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত।

সূচক অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ ভুটান, দেশটির স্কোর ৬৮। ১৮০টি দেশের মধ্যে তালিকার ওপর থেকে এই দেশটির অবস্থান ২৪তম।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটির স্কোর ৪০। তালিকার ওপর থেকে দেশটির অবস্থান ৮৬তম। ২০১৯ সালের তুলনায় ভারতের অবস্থান ধাপ এগিয়েছে।

অন্যদিকে, বাংলাদেশের ঠিক আগেই পাকিস্তানের অবস্থান। দেশটির অবস্থান ২০১৯ সালের চাইতে এক ধাপ পিছিয়েছে। দেশটির স্কোর ৩১। তালিকার ওপর থেকে দেশটির অবস্থান ১২৪ তম।

জার্মানির বার্লিনভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই) কর্তৃক পরিচালিতদুর্নীতির ধারণা সূচক (সিপিআই) ২০২০এর বৈশ্বিক প্রকাশ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তথ্য তুলে ধরেন তিনি।

সিপিআই ২০২০ অনুযায়ী, বিগত দুইবারের মত বাংলাদেশের স্কোর ২৬, যা সিপিআই ২০১৮ ২০১৯ এর তুলনায় অপরিবর্তিত রয়েছে। তালিকার সর্বনিম্ন থেকে গণনা অনুযায়ী ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ১২তম অবস্থানে রয়েছে, যা সিপিআই২০১৯ এর তুলনায় দুই ধাপ পিছিয়েছে এবং সর্বোচ্চ থেকে গণনা অনুযায়ী ১৪৬তম যা ২০১৯ এর তুলনায় অপরিবর্তিত রয়েছে।

১০০ এর মধ্যে ৪৩ স্কোরকে গড় স্কোর হিসেবে বিবেচনায় সিপিআই ২০২০ এর স্কোর অনুযায়ী বাংলাদেশে দুর্নীতির ব্যাপকতা এখনও প্রতীয়মান হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *