নারী ক্রিকেটার বিয়ে করলেন নারী ক্রিকেটারকে

খেলা

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: শুনে কিছুটা অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন কিভাবে একজন নারী আরেক নারীকে বিয়ে করতে পারেন? কিন্তু এটাই সত্য। এটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের দুই নারী ক্রিকেটারের মধ্যে। আর দশটা বিয়ের মতো এটি নয়। হাতে হাত রেখে দুজনে বললেন, ‘ইয়েস আই ডু’। হয়ে গেল দুই নারী ক্রিকেটারের বিয়ে।
নিউজিল্যান্ডের নারী ক্রিকেটার হ্যালি জেনসেন অন্যজন অস্ট্রেলিয়ার নিকোলা হ্যানক ঠিক এভাবেই একে অপরের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হলেন। সমলিঙ্গের এই বিয়ে বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে ক্রিকেট বিশ্বে।
আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়েটা ১২ এপ্রিল হলেও ইনস্টাগ্রামে তারা আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন গতকাল শুক্রবার।
নিকোলা আর হ্যালি দুজনে একসঙ্গে ঘর করছেন, তা অবশ্য অনেক দিন হলো। নারীদের বিগ ব্যাশে দুজন একসঙ্গে খেলতেন মেলবোর্ন স্টারসের হয়ে। হ্যালি পরে যোগ দিয়েছেন স্টারসের নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী রেনেগেডসের দলে। দুজন অবশ্য এখনও এক দলে খেলেন, অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নারী ক্রিকেট লিগে ক্যাপিটাল টেরিটরির হয়ে। দুজনের জাতীয় দল যদিও আলাদা। হ্যালির নিউজিল্যান্ডের হয়ে অভিষেক হয়েছে ২০১৪ সালে। নিকোলার এখনও অভিষেক হয়নি, তবে গত বিগ ব্যাশে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩ উইকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়া দলে কড়া নাড়ছেন।
অস্ট্রেলিয়ায় বিয়ের জন্য বিখ্যাত সানশাইন কোস্টে আয়োজিত এই আয়োজনে দুজনের পরিবারের অতিথি আর বন্ধুরা ছিলেন। পরে এক বিবৃতিতে হ্যালি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন এই বলে, ‘সানশাইন কোস্টে আমাদের জন্য বিশেষ এই দিনটায় যারা হাজির হয়েছিলেন, তাদের প্রত্যেককে ধন্যবাদ জানাই। আমরা যখন পরস্পরের প্রতি নিজেদের ভালোবাসার বন্ধনটা আরও দৃঢ় করছিলাম, সেই মুহূর্তটায় কাছের সব মানুষকে পাশে পাওয়াটা সত্যিই সৌভাগ্যের।’
আর নিকোলা ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘১২ এপ্রিল আমি আমার স্বপ্নের নারীকে বিয়ে করেছি। সেই দিনটা ছিল হাসি, আনন্দ আর অবশ্যই ভালোবাসায় পরিপূর্ণ।’ দুজনকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট করছে অনেকে। এর মধ্যে আছে মেলবোর্ন স্টারসও।
২০১৩ সালের এপ্রিলে নিউজিল্যান্ড সমলিঙ্গের মধ্যে বিয়ের আইনগত বৈধতা দেয়। আর অস্ট্রেলিয়ায় সেটি বৈধতা পেয়েছে ২০১৭ সালে। এ নিয়ে নারী ক্রিকেটারদের মধ্যে চতুর্থ জুটি বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *