নির্বাচনে এমপি হস্তক্ষেপ করলে তাকে ঠেকাবে কে, প্রশ্ন সুজন সম্পাদকের

জাতীয়

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য যখন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে তখন তাকে কে ঠেকাবে। নির্বাচন কমিশন যে ধরনের ভূমিকা রাখছে তাতে মনে হয় তারা নির্বাচনকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের প্রভাবমুক্ত রাখতে পারবে না। আজ বৃহস্পতিবার একটি বেসরকারি চ্যানেলের এক আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
বদিউল আলম মজুমদার বলেন, এখানে একটি দল ক্ষমতায় আছে। এখন দল যখন ক্ষমতায় থাকে অনেকগুলো চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি হয়। একটা চ্যালেঞ্জ হলো দল মানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, দল মানে প্রশাসন। ১৯৯১ সাল থেকে আমাদের রাজনীতিকরা ব্যাপকভাবে রাষ্ট্রীয় প্রশাসনকে তাদের নিজেদের দলীয় করণ করার প্রবণতা শুরু করেছে। ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচনের পরে এই প্রবণতা বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কোন প্রশাসন কোথায় থাকবে সেটা এমপি-মন্ত্রিদের ডিও লেটারের উপর ভিত্তিকরে পদায়ন করা হয়, তাদের পছন্দের কর্মকর্তাকে সেখানে বসায়। তাই নির্বাচনের সময় সে অবশ্যই স্থানীয় নেতা-মন্ত্রীর কথা শুনবে এবং পক্ষে কাজ করবে।
তিনি বলেন, আবার সংসদ বহাল থাকছে এবং সরকার বলছে তারা রুটিন কাজ করবে, এখন রুটিন কাজের সংজ্ঞা কি সেটা পরিস্কার না। এতগুলো চ্যালেঞ্জ নিয়ে নির্বাচন কমিশন কিভাবে সবার জন্য সমতল নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি করবে সেটা দেখার বিষয়।
তিনি জানন, নির্বাচন কমিশন যে ইভিএম ব্যবহার করছে সেটার বিষয়ে অন্যান্য দলের আস্থা অর্জন করতে পারেনি এবং অনেকেই ইভিএমের বিষয়ে সন্দিহান। ইভিএম সেভাবে পরীক্ষিত নয়।
তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা। এবারের নির্বাচন যদি ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হয় তাহলে মানুষ সরকারি দলকে প্রত্যাখ্যান করবে। এবারের নির্বাচনে অনেক সংস্কার আনতে হবে। এবারের নির্বাচনে মানুষের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার নির্বাচন, মানুষের আস্থা অর্জনের নির্বাচন। আর সেটা বাস্তবায়ন করার এখনই সময়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *