মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত করণে মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানের সাথে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর বৈঠক

আন্তর্জাতিক জাতীয়

ঢাকা (১৫ অক্টোবর, ২০২০) : বাংলাদেশের কর্মীদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্তকরণ ও প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয়ে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানের সাথে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদ, এমপি এর একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় জুম অনলাইনে এ বৈঠক হয়।

কার্যক্রম গ্রহণের বিষয়টি সভায় আলোচনা করা হয় এবং মালয়েশিয়া পক্ষ এ বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণে নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে।

এ সংক্রান্ত গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে পরবর্তীতে জানানো হবে বলে তাদের পক্ষ হতে আশ্বস্ত করা হয়। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী একই সাথে মালয়েশিয়ায় অনিয়মিতভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের নিয়মিতকরণের বিষয়ে সে দেশের মানব সম্পদ মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহযোগিতা কামনা করেন। বৈঠকে ইতিবাচক ও ফলপ্রসূ আলোচনা অনুষ্ঠিত হওয়ায় উভয় পক্ষ সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বৈঠকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার মো. শহিদুল ইসলাম, বিএমইটি’র মহাপরিচালক মো. শামসুল আলম, অতিরিক্ত সচিব বশির আহমেদ এবং কাউন্সেলর (শ্রম) মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম অংশগ্রহণ করেন।

মালয়েশিয়ার পক্ষে সেদেশের মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি জেনারেল দাতুক জামিল বিন রাকন, ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল এ. মানিয়াম, পলিসি ডিভিশনের আন্ডার-সেক্রেটারি ড. নুর মাজনি বিনতি আবদুল মাজিদ, ইন্টারন্যাশনাল ডিভিশনের আন্ডার-সেক্রেটারি ড. জাকি বিন জাকারিয়া এ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার পুনরায় বাংলাদেশের জন্য উন্মুক্তকরণ, সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর, কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে অনলাইন সিস্টেম চালু করা, কর্মী প্রেরণে রিক্রুটিং এজেন্টের সম্পৃক্ততা, পরবর্তী জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ সভা আয়োজন এবং কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে আটকে পড়া বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় প্রত্যাগমন প্রভৃতি বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য শ্রমবাজার শিগগিরই উম্মুক্তকরণের বিষয়ে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী তার সম্মতি ব্যক্ত করেন। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি উন্নত হলে কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সভায় উভয় মন্ত্রী এই মর্মে একমত হন যে, সুষ্ঠু শ্রম অভিবাসনের স্বার্থে বাংলাদেশ হতে সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্টের তালিকা মালয়েশিয়ায় প্রেরণ করা হবে এবং মালয়েশিয়া পক্ষ উক্ত তালিকা হতে উপযুক্ত সংখ্যক রিক্রুটিং এজেন্ট নির্বাচন করবে।

রিক্রুটমেন্ট প্রক্রিয়ায় ডাটাবেইজ থেকে কর্মী সংগ্রহ, ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে ন্যায্য সার্ভিস মূল্য প্রদানসহ পুরো প্রক্রিয়া মনিটরিং করা হবে একটি সমন্বিত অনলাইন সিস্টেমের মাধ্যমে। কর্মী রিক্রুটমেন্ট প্রক্রিয়ায় মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করার বিষয়েও উভয় পক্ষ অভিমত ব্যক্ত করে।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মীদের রিক্রুটমেন্ট ও সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম বিষয়ে শিগগিরই উভয় দেশের মধ্যে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ মিটিং অনুষ্ঠিত হবে মর্মেও বৈঠকে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে আটকে পড়া বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়া প্রত্যাগমনের লক্ষ্যে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *