সীমান্তে নতুন করে বোমারু এবং এয়ার ডিফেন্স মিসাইল মোতায়েন করেছে চীন

আন্তর্জাতিক ভারত

ঢাকা (১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০) : বিতর্কিত লাদাখ সীমান্তের উত্তেজনা কমাতে কূটনৈতিক, সামরিক ও রাজনৈতিক স্তরে এশিয়ার পরাশক্তি চীনের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে প্রতিবেশী ভারত। কারণ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অস্থিরতা কখনোই মোদী সরকারের জন্য সুখের নয়। অন্য দিকে লাদাখ সীমান্তে একের পর এক সামরিক শক্তি বাড়িয়েই চলেছে বেইজিং।
সূত্রের খবর, সীমান্তে নতুন করে বোমারু এবং এয়ার ডিফেন্স মিসাইল মোতায়েন করেছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি।
চলতি বছরের মে মাস থেকেই পূর্ব লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার পারদ চড়ছে। প্যাংগং লেক, গলওয়ান, দেপসাং উপত্যকার মতো ভারতীয় ভূখণ্ডে ঘাঁটি গেরে বসেছে চীন। ১৫ জুন রাতে গলওয়ান উপত্যকায় বিনা প্ররোচনায় ভারতীয় সেনার উপর হামলা চালায় চীনা বাহিনী। অনুপ্রবেশের সময় পিএলএ সদস্যদের রুখতে গিয়ে নিহত হন এক কর্নেলসহ ২০ জন ভারতীয় সেনা।
ভারতের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই সীমান্তে সামরিক শক্তি বাড়াচ্ছে চীন। যার ফলে গত দুই সপ্তাহ ধরে ভারতের প্ররোচনায় সীমান্তে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। এর ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সীমান্তে বোমারু, এয়ার ডিফেন্স মিসাইল, আর্টিলারি, সাঁজোয়া গাড়ি, পদাতিক বাহিনী ও স্পেশাল ফোর্স মোতায়েন করা হচ্ছে। পিএলএ চীনের সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতা রক্ষা করতে কতটা সক্ষম, এটা তারই প্রমাণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *