সেতিয়েনের পর আবিদালকেও বরখাস্ত করল বার্সা

খেলা

নিউজ মিডিয়া ২৪: কোচ কিকে সেতিয়েনের পর এবার ক্রীড়া পরিচালক ও ক্লাবেরই সাবেক খেলোয়াড় এরিক আবিদালকেও ছাঁটাই করল কাতালান জায়ান্ট বার্সেলোনা।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বার্সা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বার্সা জানিয়েছে, ‘বার্সেলোনা এবং এরিক আবিদাল উভয়পক্ষই চুক্তির সমাপ্তি টানতে রাজি হয়েছে। ’
চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে বিদায়ের পর সেতিয়েনকে সোমবার (১৭ আগস্ট) বরখাস্ত করে বার্সেলোনা। এর একদিন পরেই আবিদালও বরখাস্ত হলেন। আবিদালের জায়গায় তারই সাবেক সহকর্মী র‍্যামন প্ল্যানসের নিয়োগ প্রায় চূড়ান্ত।

বার্সার হয়ে সেতিয়েনকে ক্যাম্প ন্যু ছাড়ার দরজা দেখানোই ছিল আবিদালের শেষ দায়িত্ব পালন। এরপর নিজের সেই রাস্তায় হাঁটলেন তিনি। সেতিয়েন ও আবিদাল গেলেও বার্সা প্রেসিডেন্ট হোসে মারিয়া বার্তমেউ এখনও বহাল তবিয়তে টিকে আছেন।

মূলত মৌসুমের অধিকাংশ সময় এগিয়ে থেকেও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে লা লিগার শিরোপা খোয়ানোর পর থেকেই বার্সায় পরিবর্তনের হাওয়া লাগতে শুরু করে। এরপর এলো সেই বায়ার্ন ঝড়। তাতে নৌকার মাঝি সেতিয়েন হাওয়া হয়ে গেলেন। আবিদালের বিদায়ও ছিল অনুমিতই।

এবারের মৌসুমের শুরুতে আর্নেস্তো ভালর্দেকে বরখাস্ত করার পর থেকেই বিতর্কে জড়ান আবিদাল। সাবেক এই ফরাসি ফুল-ব্যাকের সঙ্গে ক্লাবের শীর্ষ তারকা বিশেষ করে মেসির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে। কারণ ভালর্দের ব্যর্থ হওয়ার পেছনে ক্লাবের খেলোয়াড়দের দায় আছে বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

আবিদাল দাবি করেছিলেন, দলের কয়েকজন খেলোয়াড়ের নিবেদনে ঘাটতি থাকা ব্যর্থ হন ভালভার্দে। এই মন্তব্যে ক্ষুব্ধ মেসি তখন খোলামেলাই সাবেক সতীর্থের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড এমনকি কোন কোন খেলোয়াড়ের কথা বলেছেন আবিদাল সেটাও খোলাসা করতে বলেন।

এতদিন পর আবিদালকে বিদায় করে দেওয়ার উদ্দেশ্য হয়তো মেসিকে শান্ত রাখা, এমনটাই অভিমত ফুটবল বিশেষজ্ঞদের। কারণ বায়ার্ন ম্যাচের পর থেকেই মেসি ‘যাই যাই’ করছেন বলে শোনা যাচ্ছে। তবে আবিদাল একা গেলে তো হবে না, ক্লাবের আরও অনেকের বিদায় এখন জরুরি বলে মত অনেকের। বিশেষ করে ক্লাব প্রেসিডেন্ট বার্তমেউকে সরানোর জোর দাবি উঠেছে।

বার্তমেউ’র মেয়াদে বার্সা বহুবার নেতিবাচক কারণে শিরোনাম হয়েছে, এখনও হচ্ছে। কিন্তু ভদ্রলোক কিছুতেই চেয়ার ছাড়তে রাজি নন। আগামী বছরের মার্চে ক্লাবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই পর্যন্ত চেয়ার আঁকড়ে ধরে রাখতে মরিয়া তিনি। স্পেনের একাধিক সংবাদমাধ্যমের দাবি, নিজের চেয়াদ বাঁচাতেই আবিদালকে বলি দিলেন বার্তমেউ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *