১৫ আসনে বিএনপি প্রার্থীর গণসংযোগে হামলা, গ্রেপ্তার ৯৭

জাতীয়

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা: রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইসিতে লিখিত অভিযোগ অব্যাহত রাখার পরও সারাদেশে বিএনপি প্রার্থীদের ভোটার ও সমর্থকদের ওপর হামলা নির্যাতন ও পুলিশি হয়রানি বন্ধ হচ্ছে না। বিএনপি প্রার্থীদের বাসায় অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। যারা বের হচ্ছেন- তাদের গাড়ি বহরে হামলা চালানো হচ্ছে। ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীদের নির্বাচনী অফিসেও হামলা হচ্ছে, চালানো হচ্ছে ভাঙচুরও। ফলে সারাদেশে এক ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যগুলো নিচে তুলে ধরা হলো।
ঢাকা-১৩: আব্দুস সালামের গণসংযোগে হামলা-মাইক ছিনতাই
ঢাকা-১৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী আব্দুস সালামের নির্বাচনী গণসংযোগে হামলা-ভাঙচুর করে মাইক ছিনতাই ও মনির নামে এক বিএনপি কর্মীকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দুপুর ২টার দিকে আদাবরের সুনিবিড় হাউজিংয়ে এ ঘটনা ঘটে।
কামাল ইবনে ইউসুফের নির্বাচনী গণসংযোগে হামলা, আহত ৫
ফরিদপুর-৩ আসনের বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফের নির্বাচনী গণসংযোগে হেলমেট বাহিনী হামলা চালিয়েছে।
বুধবার দুপুরে কোতয়ালী থানা থেকে মাত্র ৫০ গজ দূরে শহরের চকবাজার চালপট্টির সামনে সাপ্তাহিক হাটের ভেতর প্রকাশ্য দিবালোকে এ ঘটনা ঘটে। এ হামলায় জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এএফএম কাইয়ুম, শহর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান চুন্নু, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সামসুর রহমান কুটু, কাঁচা মালের ব্যবসায়ী ফারুক, ২নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম, ২নং ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ জালাল শেখ সহ কমপক্ষে পাঁচজন আহত হন। এদের মধ্যে আহত লিয়াকত হোসেন লাবলুকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
ফেনীতে ধানের শীষ প্রার্থী মনজুর আলমের উপর হামলা
ফেনী-১ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনিত প্রর্থী মনজুর আলমের নির্বাচনী প্রচারণায় তার ও তার কর্মী-সমর্থকদের উপর হামলা করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় ফেনীর বিভিন্ন এলাকায় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে তারা।
এ সময় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতকর্মীরা মনজু ও তার কর্মী-সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। পরে মনজু’র নেতাকর্মী ও সমর্থকেদের প্রতিরোধের মুখে তারা পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। এছাড়াও জি.এম. হাটসহ বিভিন্ন জায়গায় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর ও নির্বাচনী পোষ্টার ছিড়ে ফেলে যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতকর্মীরা।
রাজশাহীতে বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় আ’লীগের হামলা, আহত ৭
রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামী লীগের লোকজন হামলা চালালে স্থানীয় জনগণ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ৭ জন আহত হয়।
বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের আলোকনগর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি বেলাল হোসেন ও বিএনপি কর্মী জিল্লুরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
নরসিংদীতে বিএনপি প্রার্থীর গাড়িবহরে হামলা, ১০ গাড়ি ১২ মোটরসাইকেল ভাঙচুর
নরসিংদী-৩ আসনে শিবপুরের শিমুলিয়ায় এলাকায় আওয়ামী লীগের লোকজন ৪০/৫০টি মোটর সাইকেল করে এসে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিএনপি প্রার্থী মনজুর এলাহীর গাড়িবহরে হামলা ও ভাংচুর শুরু করে। এতে প্রার্থীর গাড়িসহ ১০টি গাড়ি, ১২টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। হামলায় আহত হয় কমপক্ষে ৫ জন বিএনপি নেতাকর্মী। বুধবার বেলা ৩ টার দিকে লাখপুর শিমুলিয়া স্থানীয় একটি স্কুলের পিছনে এ ঘটনা ঘটে।
নাটোরে ধানের শীষের প্রার্থীর ওপর হামলা, রক্তাক্ত দুলুর স্ত্রী
নাটোর-২ (সদর-নলডাঙ্গা) আসনে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সাবেক ভূমি উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর সহধর্মিনী সাবিনা ইয়াসমিন ছবির ওপর হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে তিনি রক্তাক্ত হয়েছেন।
বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার সময় নলডাঙ্গা উপজেলার ত্রিমোহনীতে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় এ হামলার ঘটনা ঘটে।
জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ সালাহ্উদ্দিনের
বাড়ি বাড়ি গিয়ে নেতাকর্মীদের হয়রানি ও গ্রেপ্তার করা হচ্ছে অভিযোগ করে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন ঢাকা-৪ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী আলহাজ্ব সালাউদ্দিন আহমেদ। বুধবার রাজধানীর শ্যামপুরে নিজ বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।
বিএনপির এ প্রার্থী বলেন, নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে তার ওপর বারবার হামলা হচ্ছে জানিয়ে সকল বৈরী পরিস্থিতি মোকাবেলা করে শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন প্রাক্তন এই সংসদ সদস্য।
রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপির প্রার্থীর গণসংযোগে হামলা
চট্টগ্রাম-৭ আসনের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার দক্ষিণ নিচিন্দাপুর এলাকায় ধানের শীষের প্রার্থী নুরুল আলমের গণসংযোগে হামলা করেছে সরকার দলীয় লোকজন। এসময় বিএনপির ৫ নেতাকর্মী আহত হয়। বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল ১১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।
মেহেরপুরে বিএনপির নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর
মেহেরপুর-১ আসনের শেখপাড়া বিএনপি নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার দিবাগত রাতের কোন এক সময় অফিসটি ভাঙচুর করা হয়।
যশোরে বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় গুলি-বোমার অভিযোগ
যশোর-৩ (সদর) আসনে ধানের শীষের প্রার্থী অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের নির্বাচনী গণসংযোগে আবারো বোমা হামলা ও গুলি চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়া যশোর শহরতলীর মণ্ডগাতি মোড়ে বিএনপি অফিস ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
মঙ্গলবার রাতে শহরের কেন্দ্রস্থলে গোহাটা রোডে সিটি প্লাজার কাছে এই হামলা চালানো হয়। ঘটনার জন্য বাঁধন নামে এক ‘চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও তার অনুসারীদের’ দায়ী করেছেন প্রার্থী অমিত। তবে বোমা-গুলির ঘটনায় কারো আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।
ময়মনসিংহ-২ আসনে বিএনপির ৩ নেতা গ্রেপ্তার
ময়মনসিংহ-২ আসনের ফুলপুর উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতিসহ তিন নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) সকালে পৌরসভার গ্রীণ রোড এলাকা থেকে ফুলপুর উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মো. এমদাদ হোসেন খান (৫৩)কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
এছাড়া ফুলপুর পুলিশ মঙ্গলবার রাতে বায়েজিত (৩০) ও তারাকান্দা থানা পুলিশ বিসকা গ্রামের আতিকুল ইসলাম (২৫) নামে বিএনপির কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে।
গাংনীতে বিএনপি-জামায়াতের ১৯ নেতাকর্মী আটক
গাংনীতে পুলিশের অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ১৯ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে আটককৃত এসব নেতাকর্মীদের বাড়ি গাংনী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে। বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) মেহেরপুর আদালতের মাধ্যমে এসব নেতাকর্মীদের জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।
বরিশালে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলনেত্রীসহ বিএনপির ১৯ নেতাকর্মী আটক
বরিশালে ধানের শীষের গণসংযোগকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেত্রী আফরোজা খানম নাসরিনসহ ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে নগরীর পৃথক স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার রাতে আরও ১১ জনকে আটক করা হয়।
যশোরে বিএনপি প্রার্থী অমিতের প্রচার মাইক ভাংচুর
যশোর শহরে আবারো ধানের শীষ প্রতীকের প্রচার মাইক ভাঙচুর করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে শহরের কেন্দ্রস্থলে বিএনপি প্রার্থীর ধানের শীষ প্রতীকের প্রচার মাইকে এই হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ২টার কিছু সময় পর জেনারেল হাসপাতালের সামনে আসন্ন নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের পক্ষে প্রচারে নামা একটি মাইক ও গাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের মাথায় ঘটনার সময় ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্ব পালনরত থাকলেও তাদের চোখের সামনেই এই হামলার ঘটনা ঘটে।
ক্ষমতাসীন সন্ত্রসীরা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে: হাফিজ ইব্রাহিম
ভোলা-২ আসনের বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী মো: হাফিজ ইব্রাহিম অভিযোগ করে বলেছেন, তার নির্বাচিত এলাকায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সন্ত্রসীরা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তাকে ও তার পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। তার সমর্থকদের দোকান-পাট ভাঙচুর করে বন্ধ করে দিয়েছে। পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে পুলিশ উল্টো বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে গিয়ে গ্রেপ্তার ও হয়রানি করছে।
বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) বোরহানউদ্দিন উপজেলায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন।
বরিশালে ২৪ ঘণ্টায় বিএনপির ২৬ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার
বরিশাল নগরীতে গত ২৪ ঘণ্টায় মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতিসহ সহযোগী সংগঠনের ২৬ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকাল থেকে বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকাল পর্যন্ত তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
রেজা কিবরিয়ার গাড়িবহরে হামলা-মারধর
হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী ড. রেজা কিবরিয়ার নির্বাচনী গাড়িবহরে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।
বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যার পর ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের বান্দের বাজার এলাকায় রেজা কিবরিয়ার নির্বাচনী প্রচারণার সময় তার গাড়িবহরে হামলা ও বিএনপি নেতাকে মারধর করা হয়।
বগুড়ায় নৌকার গণসংযোগে হামলা, ধানের শীষের ৩ অফিস ভাঙচুর
বগুড়া-৪ আসনের নন্দীগ্রাম উপজেলায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী গণসংযোগে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর জেরে ধানের শীষের তিনটি নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাল্টাপাল্টি এ ঘটনায় উভয়পক্ষের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে বলেও খবর পাওয়া গেছে।
বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৭টার দিকে উপজেলার বুড়ইল ইউনিয়নের মুরাদপুর এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।
মৌলভীবাজারে বিএনপি জামায়াতের ৩০ নেতাকর্মী আটক
মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর নির্বাচনী এলাকাসহ জেলার ৪টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ সমর্থকদের বিএনপির নির্বাচনী পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা, অব্যাহত ধরপাকড় ও তল্লাশীর নামে পুলিশী হয়রানির অভিযোগ করেছেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের বিএনপি প্রার্থী ও জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমান। মৌলভীবাজার জেলা রিটার্নিং অফিসার বরাবর এক লিখিত পত্রে এ অভিযোগ করা হয়।
অভিযোগে বলা হয়, তার নির্বাচনী এলাকা মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর উপজেলায় পুলিশ গভীর রাতে নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি হানা দিয়ে গ্রেফতার ও হয়রানী করছে। যা সুষ্ঠু নির্বাচনের অন্তরায়।
এদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে ভোর রাত পর্যন্ত বিভিন্ন মামলায় জেলার রাজনগর থেকে ২, কুলাউড়া থেকে ৬, বড়লেখা থেকে ২, জুড়ি থেকে ৩, শ্রীমঙ্গল থেকে ১৬, কমলগঞ্জ থেকে ১জনসহ বিএনপি জামায়াতের ৩০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
আটককৃতদের মধ্যে কুলাউড়া উপজেলা বিএনপি নেতা মঈনুল হক বকুল, জয়চন্ডি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কমর উদ্দিন কমরু, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক আব্দুল মুহিত বাবলু, ছাত্রদল নেতা ইব্রাহিম লিসেছ, প্রবাসী যুবদলনেতা আলাল মিয়া, বিএনপি নেতা তারা মিয়া, শ্রীমঙ্গল পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামিম আহমেদ, বিএনপিনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন,আব্দুল কাদির, আফজল আলী,আল-আমিন আহমেদ, মনির, ফাইজুল, সোহেল মিয়া, একমন হোসেন দ্বিমন , কামাল মিয়া , রুবেল মিয়া , শহিদুল ইসলাম , ইমাদ আলী , জামাল হোসেন , মাইনুদ্দিন ও সেফুল আহমেদ, বড়লেখা উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাফিজ, দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জব্বার, জুড়ী উপজেলা বিএনপির নেতা হাজী মাছুম রেজা, আব্দুল গফুর সেলিম রেজাউল করিম রাজু, কমলগঞ্জের মোস্তাফিজুর রহমান শিপলু, রাজনগর থানার জুয়েল খান ও হাবিবুর রহমান রয়েছেন।
কুমিল্লায় বিএনপি প্রার্থী নির্বাচনী অফিসে হামলা
শীর্ষকাগজ, ঢাকা: কুমিল্লা-৩ নির্বাচনী (মুরাদনগর) আসেন বিএনপির প্রার্থী কেএম মজিবুল হক এর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে আওয়ামী লীগের লোকেরা। হামলাকারীরা মুখোশ পরে মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে সশস্ত্র অবস্থানে থাকায় সাধারণ মানুষ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। আজ দুপুরের দিকে মুরাদনগরের পৃথক পৃথক স্থানে এ সহিংস ঘটনা ঘটে। এতে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে একটি ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মুরাদনগরের বাংগরা থানাধীন আন্দিকোট ইউনিয়নে আজ বেলা তিনটার দিকে আওয়ামী লীগের অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা মুখোশ পরে বিএনপির প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর করে। তারা কার্যালয়ে থাকা পোস্টার, ব্যানার ছিড়ে ফেলে। চেয়ার-টেবিল ও প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ব্যাপক ভাঙচুর করে।
অপরদিকে স্থানীয় গাঙ্গেরকুট এলাকায় স্থাপিত ধানের শীষ প্রতীকের নির্বাচনী কার্যালয় ভাঙচুর করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আজ (১৯ ডিসেম্বর) বেলা দু’টার দিকে সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায়। এসময় তারা ব্যাপক ভাঙচুর করে। অফিসে থাকা সব প্রয়োজনীয় মালামাল তছনছ করে। হামলাকারীরা স্থানীয় বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের হুমকি দিয়ে এলাকা ছাড়ে। ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।
একইদিন বিএনপির প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ করে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগের চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। তারা মুখোশ পরে বিএনপি প্রার্থী মজিবুল হকের নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *