সম্মানী ভাতা ৩০ হাজার টাকা করার দাবি

জেলার-খবর

নিউজমিডিয়া২৪:- সিলেট: সম্মানী ভাতা ৩০ হাজার টাকায় উন্নীত করার দাবি জানালেন সিলেটের বীর মুক্তিযোদ্ধারা।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে সিলেট সার্কিট হাউসে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপির সঙ্গে মতবিনিময়কালে সরকারের কাছে এ দাবি তুলে ধরেন তারা।

এসময় ১৫ দফা দাবি উত্থাপন করে সম্মানী ভাতা বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে মুক্তিযোদ্ধারা বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ২০ হাজার টাকা পর্যাপ্ত নয়। সময়ের সঙ্গে সম্মানী ভাতা বৃদ্ধি করা অত্যন্ত জরুরি।

বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২২টি হাসপাতালে মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসার জন্য গিয়ে হয়রানি হতে হয়।

তারা বলেন, ‘বাংলাদেশে বিসিএস ক্যাডার, সচিব উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা আসবে যাবে; কিন্তু মুক্তিযোদ্ধারা বার বার আসবে না। কয়েক বছর পর দূরবীন দিয়ে খুঁজেও মুক্তিযোদ্ধা পাওয়া যাবে না।

সিলেট জেলা প্রশাসন আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপি বলেন, ‘জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লড়াই করে আমরা মুক্তিযোদ্ধারা দেশকে স্বাধীন করেছি। মহাকালের মহানায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, মহান স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছাড়া বাংলাদেশের স্বাধীনতা সম্ভব ছিল না। বঙ্গবন্ধু মানুষের প্রতি আস্থাশীল ছিলেন। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ও মর্যাদা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে কখনোই নিরাশ করেননি, এখনো করবেন না। ‘

নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরার জন্য তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আহ্বান জানান। সেই সঙ্গে তরুণ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে কাজ করার আহবান জানান।

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সিলেটের ইউনিট কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. লুৎফুর রহমান লেবু।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সিলেট মহানগর ইউনিটের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবতোষ রায় বর্মণ রানার পরিচালনায় সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সদস্য সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা ওসমান আলী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এ.বি.এম সুলতান আহমদ।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজনীন হোসেন,  বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা তোতা মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান প্রমূখ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ইরশাদ আলী ও গীতা পাঠ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শুভেন্দু দাশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *